1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. zahangiralam353@gmail.com : Channel Inani :
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০২:০৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কঠোর লকডাউনকে পুঁজি করে মহেশখালীর বড়দিয়া প্যারাবন কেটে অবৈধ চিংড়িঘের পুনরায় দখল নিল প্রভাবশালী সিন্ডিকেট! নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবি অভিযান চালিয়ে ৯৫৮০ পিচ বার্মিজ ইয়াবা ও গাড়িসহ আটক দুই মহেশখালীতে কঠোর লকডাউনের ৩য় দিনে ৩৮ মামলায় ৮ হাজার ৪শত টাকা জরিমানা! মহেশখালী পৌরসভায় ৪০৬ কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মহিলাদের মাঝে ৩৩লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা বিতরণ মহেশখালীতে কঠোর লকডাউনের ২য় দিনে ৮ মামলায় ৪ হাজার টাকা জরিমানা! দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর পাহাড়ে শেখ রাসেল শিশু পার্কের শুভ উদ্বোধন করলেন-এমপি আশেক মহেশখালীতে কোরবানির মাংস ভাগবাটোয়ারা ইসুতে একই পরিবারে ৪ জনের বিষপান নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারীতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেল ৩২৭ পরিবার। ইনানীতে সমুদ্র সৈকতের চর দখল করে স্থাপনা নির্মাণের হিড়িক দেখার কেউ নেই
শিরোনাম
কঠোর লকডাউনকে পুঁজি করে মহেশখালীর বড়দিয়া প্যারাবন কেটে অবৈধ চিংড়িঘের পুনরায় দখল নিল প্রভাবশালী সিন্ডিকেট! নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবি অভিযান চালিয়ে ৯৫৮০ পিচ বার্মিজ ইয়াবা ও গাড়িসহ আটক দুই মহেশখালীতে কঠোর লকডাউনের ৩য় দিনে ৩৮ মামলায় ৮ হাজার ৪শত টাকা জরিমানা! মহেশখালী পৌরসভায় ৪০৬ কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মহিলাদের মাঝে ৩৩লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা বিতরণ মহেশখালীতে কঠোর লকডাউনের ২য় দিনে ৮ মামলায় ৪ হাজার টাকা জরিমানা! দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর পাহাড়ে শেখ রাসেল শিশু পার্কের শুভ উদ্বোধন করলেন-এমপি আশেক মহেশখালীতে কোরবানির মাংস ভাগবাটোয়ারা ইসুতে একই পরিবারে ৪ জনের বিষপান নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারীতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেল ৩২৭ পরিবার। ইনানীতে সমুদ্র সৈকতের চর দখল করে স্থাপনা নির্মাণের হিড়িক দেখার কেউ নেই

কক্সবাজার সদর হাসপাতাল কমিটিতে যারা আছেন তাদের মধ্যে একজন সদস্য কেন পদত্যাগ করেছেন

  • আপডেট করা হয়েছে সোমবার, ৮ জুন, ২০২০
  • ৪৫২ বার পড়া হয়েছে

হাসপাতাল কমিটিতে যারা আছেন তাদের মধ্যে একজন সদস্য কেন পদত্যাগক রতে চাইছে, এটার অর্থ হলো এই সদর হাসপাতাল একটি অকার্যকর প্রতিষ্টানে পরিনত হয়েছে বিধায় পদত্যাগের সিদ্ধান্ত গ্রহন। মূলত এই সদর হাসপাতাল একটি সেন্ডিকেট কর্তৃক পরিচালিত। এখানে নার্স ও ডাক্তারসহ সমস্ত ডিপার্টমেন্ট টা দূ্নীতিবাজ। একদিকে ডাক্তারগন প্রাইভেট প্রেক্টিস নিয়ে ব্যস্ত, অন্য দিকে নার্সরা ও রোগিদের সাথে ভাল আচরণ করেনা। আয়ারা নিয়মিত হাসপাতালের পরিস্কার পরিচন্নতা কাজে নিয়োজিত হয়ে ও তাদের অবহেলা অযত্নে একটি হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার মান নিয়ে সাধারন ভুক্ত ভোগি রোগিদের মাঝে একধরণের তীব্র অসন্তোষ বিরাজ করছে। হাসপাতাল কমিটি ও কর্তৃপক্ষের অবহেলাতে হাসপাতালের অবস্তা চরম আকার ধারণ করেছে। এই হাসপাতালে ডাক্তারা দূ্নীতিবাজ। রোগিদের মান সম্মত খাদ্য সরবরাহ করাসহ হাসপাতালে গরীব দূস্হ অসহায় মানুষের জন্য বিতরণের ঔষুদ পত্রাদি আউটডোরে চুরি করে দেওয়ার ও গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। ডাঃপুচনো দায়ীত্বে থাকাকালীন সময়ে হাসপাতালের বিভিন্ন অনিয়মের বিরোদ্ধে গণআন্দোলন গড়ে ওঠার ফলে হাসপাতালের ব্যবস্তাপনা কমিটিসহ ডাক্তারদের প্রাইভেট প্রেক্টিস বন্ধ করার দাবীতে হাসপাতালের চিকিৎসা সেবার মান উন্নয়ন ও আইসিইউ বিভাগ খোলা নিয়ে আন্দোলনরত “কক্সবাজার সোসাইটি ” ও কক্সবাজার এর সচেতন মহলের নেতৃবৃন্দ এবং সম্মানীত সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমলের উপস্হিতিতে বহু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছিলো, তার মধ্যে “লাশ কাটা ঘরের সংস্কার করে পরিবেশ বান্ধব চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে হবে। করোনা ভাইরাস এর এমুহূর্তেও হাসপাতালে ডাক্তারগন নিয়মিত রোগিদের সেবা দেওয়া থেকে বিরত ও রিতিমত হাসপাতালে অনুপুস্হিত থাকা এটা আরো হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার ক্ষেত্রে মারাত্মক প্রভাব পড়েছে। এসব বিষয় নিয়ে সচেতন মহলের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে। ২৫০ শষ্যার একটি আধুনিক মানের হাসপাতাল কে যারা অকার্যকর করচ্ছে সেসমস্ত ডাক্তার তথা হাসপাতাল এর কতৃপক্ষ ও হাসপাতালের ব্যবস্হাপনা কমিটি এর দায় এড়াতে পারবেনা, এর জন্য তারা দায়ী। নেতৃত্বদান ও পরিচালনা করতে যদি ব্যবস্হাপনা কমিটি অযোগ্যতার পরিচয় দেই, আমার নিবেদন থাকবে যারা হাসপাতালের দায়ীত্বে আছেন তারা একযোগে নিজেদের দায়ীত্ব থেকে সরে দাঁড়ান, নতুবা আপনাদের বিরোদ্ধে লাগাতার আন্দোলন হবে। পরিশেষে বলতে চাই এই হাসপাতাল কে সাধারন মানুষের জন্য চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্বারকলিপি দেওয়া হবে, যতোদিন ও যতোক্ষন পর্যন্ত কক্সবাজার সদর হাসপাতালে স্বাভাবিক অবস্তা ফিরে না আসবে ততোদিন প্রতিবাদ সমাবেশ ও আন্দোলন সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে। কক্সবাজার এর মানুষের প্রানপ্রীয় সংগঠন ” কক্সবাজার সোসাইটি ” এই জনপদের সকল মেৌলিক দাবী আদায়ের একমাত্র সংগঠন। কক্সবাজার সোসাইটি ” কক্সবাজারের স্বার্থ সংরক্ষনে বদ্বপরিকর ও প্রতিশ্রুতিবদ্ব এবং অঙিকারবদ্ধ। দীর্ঘদিন ধরে এই কক্সবাজার সোসাইটি ” আপোষহীন ভাবে কক্সবাজার এর সকল অনিয়ম, দূনীতির বিরোদ্ধে আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে সফল হয়েছে আগামীতে ও ইন্শেআল্লাহ যেকোনো লড়াই সংগ্রাম এবং আপনার আমার কক্সবাজার এর জনগনের ন্যায্য দাবী আদায়ের লক্ষ্্যআমাদের সাথে থাকবেন এই প্রত্যাশা করছি। আসুন আমরা কক্সবাজার এর জনগনের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ হই। ঐতিহ্যবাহী এই সংগঠন কক্সবাজার এর জনগনের আস্হা ও বিশ্বাসের সাথে কাজ করছে, সকল বাধা অতিক্রম করে আগামীতে ও জনগনের পাশে আছি, থাকবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Designed by: Nagorik It.Com