1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. zahangiralam353@gmail.com : Channel Inani :
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ১১:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
সাংবাদিক মান্নানের ছেলের ১ম মৃত্যুবার্ষিকীতে দোয়া মাহফিল গণমাধ্যম স্বীকৃতির দাবীতে মহেশখালীতে ‘বিএমএসএফ এর স্মারকলিপি মহেশখালী  সোনাদিয়া দ্বীপে ডাকাতির প্রস্তুতী কালে স্থানীয় জেলেদের হাতে ৬জলদস্যু আটক কুতুবদিয়ায় পালিত হচ্ছে কঠোর লকডাউন মোড়ে-মোড়ে পুলিশের কড়া নজরদারি মহেশখালী পৌর মেয়র মকছুদ মিয়া’র নিজস্ব তহবিল হতে পবিত্র রমজানের ইফতার ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ বিএমএসএফ” ঈদগাঁও থানা শাখার উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি কোরআনের আয়াত অপসারণের রিট’বাতিল করল ভারতের সুপ্রিম কোর্ট রামুর ঈদগড়ে পুলিশ না থাকায় চেয়ারম্যান ভূট্টোর নেতৃত্বে চলছে ডাকাত প্রতিরোধে এলাকাবাসীর পাহারা নাসিরনগরের ইউএনও হলেন কক্সবাজারের পুত্রবধূ হালিমা মহেশখালী উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ‘মানবতার ঘর’ শুভ উদ্বোধন

নাইক্ষ্যংছড়ি বাইশারীতে জীবন রক্ষাকারী ঔষধ সামগ্রীর মূল্য নিয়ন্ত্ররনের বাইরে

  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩৪৩ বার পড়া হয়েছে

 

নিজেস্ব প্রতিনিধি নাইক্ষ্যংছড়ি

বান্দারবানের নাইক্ষ্যংছড়ি বাইশারীতে জীবন রক্ষাকারী ঔষধ সামগ্রীর মূল্য নিয়ন্ত্ররনের বাইরে। বাংলাদেশে আড়াই হাজারের ও বেশি ঔষুধ দেশে উৎপাদন বা পুনঃপ্রক্রিয়াকরণ করে থাকে কোম্পানিগুলো। ঔষুধের দাম বাড়াতে লাগে না কারণ। কোনো কারণ ছাড়াই সারা বছর ধরে বাড়ে ঔষুধের দাম। মোবাইল কোর্ট, জঅই, সেনাবাহিনীর ব্যাপক অভিযান এখন সময়ের দাবী।
আলী মিয়া পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রবিন চাক বলেন, মানবাধিকার লংঘনকারী মেডিসিন মাফিয়া সিন্ডিকেটের এক জন নাহার মেডিকো ছৈয়দ আলম। ইতিমধ্যে আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হয়ে গেছে। আর নয়, সীমা লংঘন কম হয়নি। অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ হয়েছে। প্রেসক্রিপশনের বাইরে এক্সট্রা ঔষুধ, প্যাকেটের গায়ে মূল্যর চেয়ে অতিরিক্ত চড়া দামে ঔষুধ বিক্রি, কোন ডিগ্রী ছাড়াই বিগত কয়েক বছর ধরে ভুল চিকিৎসার পাশাপাশি চড়া দামে ঔষুধ বিক্রি করে আসছেন।
এব্যাপারে নাহার মেডিকো পল্লী চিকিৎসক ছৈয়দ আলমের কাছে জানতে চাইলে বলেন, ঔষুধের প্যাকেটের গায়ে মূল্য ৫৫ টাকা লেখা হলেও ঔষুধ গুলো আমার ৯৫ টাকা কিনা তাই ১০০ টাকা বিক্রি করতে হয়।
একই ঔষধ পার্শ্ববর্তী ফার্মেসি মেডিকেল হল, বনফুল ফার্মেসির, মোহাম্মদ এরশাদ বলেন, পেভিসন ক্রিম আমাদের কিনা ৫০ টাকা আমরা বিক্রি করি ৫৫ টাকা।
হাসপাতালে বিনামূল্যে ঔষুধ সরবরাহের কথা থাকলেও প্রয়োজনিয় ঔষুধ পাওয়া যায় না। একথা অস্বীকার করা যাবে না দেশে প্রয়োজনের তুলনায় সরকারি হাসপাতাল অপ্রতুল। সব পেশাতেই কম বেশি অবহেলার অভিযোগ পাওয়া যায়। গ্রামগঞ্জে পল্লী চিকিৎসা অবহেলা বা ভুল চিকিৎসা একটি অতি সাধারণ বিষয় হয়ে গিয়েছে। প্রায় প্রতিদিন ভূক্ততভোগী কোন না কোন পেশেন্ট বা রোগীর কাছে এই বিষয়ে জানতে পারাযায়।

বাজার সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর উক্ত ঘটনাটি সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,
চিকিৎসা পেশার সাথে সংশ্লিষ্ট যারা আছেন তারা কেউ কেউ অধিক মুনাফা লাবের আশায়, বা আইন না মানার গাফিলিতির কারনে পেশেন্ট বা রোগীর চিকিৎসায় অবহেলা করে আসছে। এই পেশাগত অবহেলার কারনে ক্ষতিগ্রস্থ পক্ষের জীবন বা সম্পদের ক্ষতিসাধন হচ্ছে।
ক্রেতাদের বাক্সভর্তি ঔষুধের প্রয়োজন না থাকায় বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই তারা প্যাকেটের গায়ের দাম দেখার সুযোগ পান না। তাছাড়া অন্যান্য পণ্যের মতো ঔষুধের দাম সম্পর্কে রোগীদের সুস্পষ্ট ধারণা থাকে না, বা দামাদামির ঘটনাও খুব বেশি হয় না। সবচেয়ে বড় কথা, মানুষ ঔষুধ কেনে জীবন বাঁচাতে এবং শারীরিক সুস্থতার জন্য। প্রয়োজনকে গুরুত্ব দিয়ে এভাবেই প্রতিদিন অধিক মূল্যে ঔষুধ কিনতে বাধ্য হন রোগীরা। তাই আমি বলছি প্রথমবারের মতো ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখলে ও দ্বিতীয়বার চড়া দামে ঔষুধ বিক্রি ও ভুল চিকিৎসা দিলে ভুলের মাশুল কঠিন হবে।

শতশত ভুক্ত ভোগীদের মধ্যে নুরুল ইসলাম, ছৈয়দ হোছোন, কবির আহমদ, মোহাম্মদ তারেক আজিজ, ছকিনা বেগম মোহাম্মদ সেলিম আরো অনেকে বলেন, মাঝে মধ্যে কোম্পানিগুলো ঔষুধের দাম না বাড়ালেও দোকানিরা অধিক মুনাফা লাভের আশায় চড়া দামে ঔষধ বিক্রি করে থাকে তা দেখার ঔষধ প্রশাসন ও নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করছি

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Designed by: Nagorik It.Com