1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. zahangiralam353@gmail.com : Channel Inani :
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৫:৫০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী গ্রাম অঞ্চলে দিন দিন চুরির ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। হ্নীলার রংগীখালীতে অতিবৃষ্টির ফলে প্লাবিত হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসী মুর ঈদগড়ে পাহাড়ী ঢলের পানিতে নিন্মাঞ্চল প্লাবিত, চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন মহলের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সাঁকো দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ পারাপার ঘুমধুমে বৃষ্টির পানিতে সাঁতার কাটতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু কঠোর লকডাউনকে পুঁজি করে মহেশখালীর বড়দিয়া প্যারাবন কেটে অবৈধ চিংড়িঘের পুনরায় দখল নিল প্রভাবশালী সিন্ডিকেট! নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবি অভিযান চালিয়ে ৯৫৮০ পিচ বার্মিজ ইয়াবা ও গাড়িসহ আটক দুই মহেশখালীতে কঠোর লকডাউনের ৩য় দিনে ৩৮ মামলায় ৮ হাজার ৪শত টাকা জরিমানা! মহেশখালী পৌরসভায় ৪০৬ কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মহিলাদের মাঝে ৩৩লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা বিতরণ মহেশখালীতে কঠোর লকডাউনের ২য় দিনে ৮ মামলায় ৪ হাজার টাকা জরিমানা!
শিরোনাম
নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী গ্রাম অঞ্চলে দিন দিন চুরির ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। হ্নীলার রংগীখালীতে অতিবৃষ্টির ফলে প্লাবিত হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসী মুর ঈদগড়ে পাহাড়ী ঢলের পানিতে নিন্মাঞ্চল প্লাবিত, চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন মহলের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সাঁকো দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ পারাপার ঘুমধুমে বৃষ্টির পানিতে সাঁতার কাটতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু কঠোর লকডাউনকে পুঁজি করে মহেশখালীর বড়দিয়া প্যারাবন কেটে অবৈধ চিংড়িঘের পুনরায় দখল নিল প্রভাবশালী সিন্ডিকেট! নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবি অভিযান চালিয়ে ৯৫৮০ পিচ বার্মিজ ইয়াবা ও গাড়িসহ আটক দুই মহেশখালীতে কঠোর লকডাউনের ৩য় দিনে ৩৮ মামলায় ৮ হাজার ৪শত টাকা জরিমানা! মহেশখালী পৌরসভায় ৪০৬ কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মহিলাদের মাঝে ৩৩লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা বিতরণ মহেশখালীতে কঠোর লকডাউনের ২য় দিনে ৮ মামলায় ৪ হাজার টাকা জরিমানা!

মা-বাবা হারিয়ে তিন অবুঝ শিশু, দায়িত্ব নেওয়ার কেউ নেই

  • আপডেট করা হয়েছে শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১
  • ৮৬ বার পড়া হয়েছে

 

শাহেদুল ইসলাম মনির, কুতুবদিয়া প্রতিনিধি।

পিতার মৃত্যুর পর মা আগলে রেখেছিল তিনকন্যাকে। লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষ করার এমন স্বপ্ন ছিল মা রূপা আক্তারের। কিন্তু সেই স্বপ্ন পূরণ না হওয়ার আগেই, চলে গেলেন না ফেরার দেশে। তিন বোন এখন মা-বাবা হারিয়ে যেন অকূল পাথারে পড়েছে। পরিবারে তাদের এখন আপন আর কেউ নেই। আত্মীয় স্বজনেরাও গরীব। এ অবস্থায় ওই দুই সন্তানের ভরণপোষণ কে দেবে। কে দেবে তাদের লেখাপড়ার খরচ, তা নিয়ে ভেবে আকুল হচ্ছেন স্বজন ও প্রতিবেশীরা।
কুতুবদিয়া উপজেলা লেমশীখালী গ্রামে তিনবছর আগে মারা যান লবনচাষী মো. ইসমাইল এবং সপ্তাহখানেক আগে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেন স্ত্রী রূপা আক্তার।
ওই তিন শিশু হলো কন্যা শিশু মাইমুনা আক্তার (১০), তানিয়া সোলতানা (৭) ও বাপ্পী (৫)। মা-বাবাকে হারিয়ে ওই তিন শিশু এখন অসহায় হয়ে পড়েছে। তাদের কান্না যেন আর থামছে না। অবুঝ এই শিশুদের সান্ত¡না দেওয়ার ভাষাও নেই স্বজন-প্রতিবেশীদের। এই শিশুরা এখন কীভাবে কোথায় থাকবে, তাদের ভবিষ্যৎ কী হবে এ নিয়ে এখন তাদের স্বজন-প্রতিবেশীরা চিন্তিত। শিশু তিনটির কান্নায় চোখ ভিজে উঠছে তাঁদেরও। ভারী হয়ে উঠেছে চারপাশের পরিবেশ।
প্রতিবেশীরা জানান, লবনচাষী মো. ইসমাইল ও রূপা আক্তার খুব দরিদ্র। দিনমজুরের কাজ করতেন। আত্মীয়স্বজন যাঁরা আছেন, তাঁরাও দরিদ্র। লবনচাষী মো. ইসমাইল ও রূপা আক্তার মারা যাওয়ায় তাঁদের তিন সন্তানের ভরণপোষণ ও দেখাশোনা করার মতো অবস্থা কারও নেই।
এব্যাপারে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ আমজাদ হোসেন জানান, এতিম তিন শিশু কন্যাদের ব্যাপারে আগে কেউ অবগত করেনি । আগামীতে নতুন কোন সুযোগ হলেই অবশ্য তাদেরকে ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Designed by: Nagorik It.Com