1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. zahangiralam353@gmail.com : Channel Inani :
রবিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৭:১২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ঈদগাঁওতে ইসলামী সম্মেলনে বক্তারা বিশুদ্ধ আকিদা-বিশ্বাসের একমাত্র মাপকাঠি কুরআন-সুন্নাহ শহরে পাহাড়কাটা মামলায় ২ জনকে দেড় বছরের কারাদণ্ড,১লক্ষ টাকা জরিমান চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে এক সন্তানের মায়ের আত্মহত্যা বিজয় ও বুদ্ধিজীবী দিবস ঈদগাঁও উপজেলা প্রশাসনের ব্যাপক প্রস্তুতি 553480201701351027 কক্সবাজার জেলা বাপার জরুরি সভায় আলমগীর কবির পরিবেশগত সংকট নিরসনে প্রশাসনিক পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি উপজেলা অনুমোদনে ঈদগাঁও উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদের ভূমিকা অপরিসীম পুলিশ হত্যা মামলায় যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গ্রেফতার চট্টগ্রামে চট্টগ্রামে হেলে পড়া ভবন পরিদর্শনে গেল তদন্ত কমিটি Мостбет скачать на компьютер: бесплатное приложение windows

ইনানীতে সমুদ্র সৈকতের চর দখল করে স্থাপনা নির্মাণের হিড়িক দেখার কেউ নেই

  • আপডেট করা হয়েছে রবিবার, ১৮ জুলাই, ২০২১
  • ২৫৯ বার পড়া হয়েছে

জসিম উদ্দিন:কক্সবাজার

করোনাকালে লকডাউনের সুযোগে কক্সবাজারের প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন (ইসিএ) এলাকায় উখিয়া-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের পশ্চিম পাশে সমুদ্রসৈকতের চর দখল করে স্থাপনা নির্মাণের হিড়িক পড়েছে।
ইতোমধ্যে শহরতলীর দরিয়ানগর সৈকতে সাগরলতার বন সমৃদ্ধ বালিয়াড়ি দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে অর্ধশতাধিক স্থাপনা। সৈকত সংলগ্ন বানরের পাহাড় অভয়ারণ্যও ঘেরা বেড়া দিয়ে দখল করে নেওয়া হচ্ছে। উখিয়ার সোনারপাড়ায় রেজু নদী সংলগ্ন প্যারাবন ধ্বংস করে সেখানেও চলছে দখলবাজদের থাবা।
সংশ্লিষ্টদের তৎপরতা না থাকায় এক প্রকার বিনাবাধায় সৈকত দখল ও স্থাপনা নির্মাণে সক্ষম হচ্ছে দখলদাররা। এ কারণে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।
সরেজমিন শুক্রবার দুপুরে দেখা যায়, পর্যটন স্পট ইনানী বিচের পাশেই আনুমানিক তিন একরের একটি জায়গা দখল করে লোহার শিকল দিয়ে ঘেরাও করে ফেলা হচ্ছে। প্রস্তুতি রয়েছে স্থাপনা নির্মাণেরও। স্থানীয়রা জানান, সালা উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি এটি দখল করে রিসোর্ট নির্মাণের চেষ্টা করে যাচ্ছে।
তবে অভিযুক্ত সালা উদ্দিনের ভাই কুতুব উদ্দিনের দাবি, জায়গাটি তাদের ব্যাক্তিমালিকাধীন। ১০ থেকে ১২ বছর আগে এটি তারা ক্রয় করেছিলেন। এখন ঘেরাবেড়া দেওয়ার কাজ চলছে। তার অভিযোগ, অপরিকল্পিতভাবে মেরিন ড্রাইভ নির্মাণ করায় তাদের ব্যক্তিমালিকানাধীন খতিয়ানভুক্ত জায়গা সৈকতের সঙ্গে একাকার হয়ে গেছে।
পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজারের সহকারী পরিচালক সংযুক্তি দাশ গুপ্তা বলেন, সমুদ্র এলাকা দখল করে স্থাপনা নির্মাণের বিষয়টি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
তিনি বলেন, মেরিন ড্রাইভের পশ্চিম পাশে প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন (ইসিএ) এলাকা হওয়ায় স্থাপনা নির্মাণ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। এমনকি মেরিন ড্রাইভের পূর্ব পাশে ৩০০ মিটারের দূরত্ব না হলে স্থাপনা নির্মাণের কোনো সুযোগ নেই।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আমিন আল পারভেজ বলেন, সমুদ্র এলাকা দখল করে স্থাপনা নির্মাণের বিষয়ে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্নেল অব. ফোরকান আহমদ বলেন, কক্সবাজারের দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত আমাদের অমূল্য সম্পদ। তাই সমুদ্রসৈকত এলাকা দখল করে স্থাপনা নির্মাণ সহ্য করা হবে না। বিষয়টি আমি খোঁজ নিচ্ছি।
তিনি বলেন, এর আগেও সৈকতের এলাকা দখল করে যেসব স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে সেসবও সময়মতো উচ্ছেদ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Designed by: Nagorik It.Com