1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. zahangiralam353@gmail.com : Channel Inani :
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ফইল্যাতলি কিচেন মার্কেট অনুমোদনহীন নতুন স্থাপনায় সৌন্দর্যহানি সদর উপজেলা প্রেসক্লাবের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন সদর উপজেলা শাখার কমিটি গঠন ৩ কোটি টাকার চোরাইপণ্য জব্দ দাবী বিজিবির চট্টগ্রাম ১০ আসনের এমপি বাচ্চুর জামিন মঞ্জুর আবুল কালাম চট্টগ্রাম এম আর আয়াজ রবি সভাপতি ও জাহাঙ্গীর আলমকে সাঃ সম্পাদক করে বাপা উখিয়া উপজেলা কমিটি অনুমোদন নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত শান্ত বিজিবি সতর্ক বিমান হামলার আতঙ্ক চট্টগ্রামের সিআরবিতে চসিকের বইমেলাকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা সেনা, ৩৩০ জনকে ফেরত পাঠানো হল। মহেশখালীতে বন কর্মকর্তা ভূমিখেকোদের যোগসাজশে উপকূলীয় এলাকায় প্যারাবনের অস্তিত্ব সংকটে
শিরোনাম
ফইল্যাতলি কিচেন মার্কেট অনুমোদনহীন নতুন স্থাপনায় সৌন্দর্যহানি সদর উপজেলা প্রেসক্লাবের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন সদর উপজেলা শাখার কমিটি গঠন ৩ কোটি টাকার চোরাইপণ্য জব্দ দাবী বিজিবির চট্টগ্রাম ১০ আসনের এমপি বাচ্চুর জামিন মঞ্জুর আবুল কালাম চট্টগ্রাম এম আর আয়াজ রবি সভাপতি ও জাহাঙ্গীর আলমকে সাঃ সম্পাদক করে বাপা উখিয়া উপজেলা কমিটি অনুমোদন নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত শান্ত বিজিবি সতর্ক বিমান হামলার আতঙ্ক চট্টগ্রামের সিআরবিতে চসিকের বইমেলাকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা সেনা, ৩৩০ জনকে ফেরত পাঠানো হল। মহেশখালীতে বন কর্মকর্তা ভূমিখেকোদের যোগসাজশে উপকূলীয় এলাকায় প্যারাবনের অস্তিত্ব সংকটে

টেকনাফ স্থলবন্দরে সবার জন্য সু্যোগ সুবিধা চায় প্রকৃত ব‍্যবসায়ীরা

  • আপডেট করা হয়েছে সোমবার, ৮ মে, ২০২৩
  • ৯৯ বার পড়া হয়েছে

 

ইব্রাহীম মাহমুদ, টেকনাফ

কক্সবাজারের টেকনাফ স্থল বন্দরে প্রকৃত ব‍্যবসায়ীরা বিভিন্ন ধরনের ভোগান্তিতে রয়েছে বলে অভিমত প্রকাশ করেন ব‍্যবসায়ীরা।
তারা জানান,কিছু অসাধু ব‍্যক্তির কারণে প্রকৃত ব‍্যবসায়ীরা বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে আর যারা কোন দিন বন্দরে যায়না তারা প্রভাব খাটিয়ে ব‍্যাংকে থেকে চালান নিয়ে বন্দরের ব‍্যবসার স্বাভাবিক পরিবেশ নষ্ট করছে।

তাদের এ সমস‍্যার কথা সরকারকে জানানো অপরিহার্য মনে করছেন।

এ বিষয়ে টেকনাফ স্থল বন্দরের বিশিষ্ট ব‍্যবসায়ী আব্দুস শুক্কুর সিআইপি সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন।গত মার্চ মাসের শুরুতে টেকনাফ স্থলবন্দর থেকে সরকার কমপক্ষে প্রতিমাসে (১০০-১৫০) কোটি টাকা রাজস্ব পেয়েছে।মার্চ মাসের দিকে সকল ব্যবসায়ীদের ব্যবসা এবং ভোক্তাদের কাছে দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিক ছিল।যেমন প্রতি কেজি আদা টেক্স ও সি.এন্ড.এফ খরচ ছিল ১৩ টাকা,যা বাজার মূল্য ছিল ভোক্তাদের হাতের নাগালে (৫৫-৬০) টাকা।

গত মার্চ মাসের পরে কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি টেকনাফ স্থলবন্দরে পদার্পণ করেন, যারা অতীতে ব্যবসার কোন অভিজ্ঞতা ছিল না। তারা প্রভাব বিস্তার করে টেকনাফ স্থলবন্দরে আমদানি রপ্তানি লাইসেন্স করে,অতঃপর সোনালী ব্যাংক ও এবি ব্যাংকে আমদানি রপ্তানি লাইসেন্স দেখিয়ে এফ ডি ডি করা শুরু করে। তাদের প্রভাবের কারণে সাধারণ ব্যাবসয়ীরা এফ ডি ডি করার সিরিয়ালও পায়না।

বর্তমান সময়ে ড্রাফটের কোঠা প্রভাবশালীদের হাতে চলে যাওয়ায়, ব্যাংক ডলার সংকট দেখিয়ে এফ ডি ডি বন্ধ করে দেয়।প্রভাবশালী ব্যকিরা কোন ধরনের ব্যবসায়ী নয়, তারা অযথা দ্রব্যমূল্যে উর্ধগতি সৃষ্টি করতেছে এবং টেকনাফ স্থলবন্দরের যেকোন পণ্যে সি.এন্ড.এফ খরচ ১০ গুণ বৃদ্ধি করতেছে।

কিছুদিন পরপর এবি ব্যাংক ও সোনালী ব্যাংকে ড্রাফট ওপেন করে দেয়, কয়েকদিন পরপর আবার বন্ধ করে দেয়। ড্রাফট ওপেন হলে প্রভাবশলীরা এফ ডি ডি সিরিয়াল তাদের নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার কারণে সাধারণ ব্যবসায়ীরা ড্রাফট করতে না পারার জন্য ব্যবসাও করতে করতে পারতেছে না।
টেকনাফ স্থলবন্দরে আদার টেক্স ও সি.এন্ড.এফ খরচ ১২ টাকার পরিবর্তে ৫০-৬০ টাকা আদায় করার কারণে দ্রব্যমূলের দাম ১০ গুণ বেড়ে গিয়ে (৫৫-৬০) টাকার আদা (১৮০-২০০) টাকা হয়ে গেছে। সরকারের রাজস্ব কিন্তু বৃদ্ধি করা হয়নি। প্রভাবশালী ব্যক্তিদের কারণে জনসাধারণ দ্রব্যমূল্যের ভোগান্তিতে পড়ে গেছে। অসাধু ব্যবসায়ীদের বর্তমান অবস্থা চলমান থাকলে ভবিষ্যতে টেকনাফ স্থলবন্দরের প্রতিটি পণ্যের সি.এন্ড.এফ কস্টিং ১৫ গুণ বৃদ্ধি করে দিবে।

সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতি
ব‍্যবসায়ীদের আকুল আবেদন প্রভাবশালী ব্যক্তি যারা ব্যবসায়ী না হয়ে ব্যবসার নামে টাকার নেশায় পড়ে গেছে তদন্ত সাপেক্ষে পদক্ষেপ নেওয়া হউক।

সাধারণ ব্যবসায়ী ও জনসাধারণের সুবিধার জন্য ব্যাংকে এফ ডি ডি উন্মুক্ত করে দিয়ে সবাইকে সিরিয়াল অনুযায়ী এফ ডি ডি করার সুযোগ দিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে সুষ্ঠুভাবে ব্যবসা করার সুযোগ দেওয়ার আবেদন জানান ব‍্যবসায়ীরা।
এইভাবে চলতে থাকলে বন্দরের অবস্থা আরো খারাপ এর দিকে যাবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন ব‍্যবসায়ী ও সচেতন সমাজ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

Designed by: Nagorik It.Com